জ্বালানি তেলের দাম কমিয়েছে সৌদি আরব

ওয়ার্ল্ড বিডি নিউজ, ঢাকা : এশিয়ান দেশের ক্রেতাদের জন্য সব ধরনের অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম কমিয়েছে সৌদি আরব। আগামী অক্টোবর থেকে এটি কার্যকর হবে। তবে উত্তর-পশ্চিম ইউরোপ ও যুক্তরাষ্ট্রের জন্য দাম অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। খবর রয়টার্স।

সৌদি আরবের রাষ্ট্রায়ত্ত জ্বালানি তেল কোম্পানি আরামকো চার মাসের মধ্যে প্রথম বারের মতো এশিয়ায় সরবরাহের জন্য লাইট ক্রুড অয়েলের দাম কমিয়েছে। অক্টোবর থেকে প্রতি ব্যারেলের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১ ডলার ৭০ সেন্ট। সেপ্টেম্বরে প্রতি ব্যারেলের দাম ছিল ৩ ডলার করে, যা গত বছরের ফেব্রুয়ারির পর সর্বোচ্চ। এক বছরের সর্বোচ্চ মাসভিত্তিক মূল্যহ্রাসের ঘটনা এটি।

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ডেল্টার তীব্র সংক্রমণ মোকাবেলায় এশিয়াজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। এতে অঞ্চলটিতে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের চাহিদা হ্রাস পায়। নিম্নমুখী চাহিদার কারণে জ্বালানি পণ্যটির দাম কমিয়েছে সৌদি আরব।

এদিকে সম্প্রতি জ্বালানি তেল রপ্তানিকারক দেশগুলোর জোট ওপেক এবং তাদের মিত্রদের নিয়ে গঠিত ওপেক প্লাস আগস্ট থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত দৈনিক চার লাখ ব্যারেল করে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলন বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নেয়। এতে বাড়ছে জ্বালানি পণ্যটির বৈশ্বিক সরবরাহ।

এদিকে এশিয়ান ক্রেতাদের জন্য অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম কমানোয় এ অঞ্চলে সৌদি আরবের জ্বালানি তেলের চাহিদা বাড়ছে বলে জানান ক্রেতারা। অক্টোবরে এশিয়ান ক্রেতারা সৌদি আরব থেকে সর্বাধিক অপরিশোধিত জ্বালানি তেল ক্রয় করবেন বলে প্রত্যাশা করা হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা জানান, এশিয়ার বাজারে নিজেদের আধিপত্য ধরে রাখতেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরব।

বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, এশিয়ার বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দাম কমিয়ে দেওয়ায় অন্যান্য উত্তোলক দেশের সঙ্গে সৌদি আরবের প্রতিযোগিতা তীব্র হচ্ছে।

রয়টার্সের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, সুপার লাইট ক্রুডের দাম ব্যারেলপ্রতি ৪ ডলার ৪৫ সেন্ট থেকে কমিয়ে ৩ ডলার ১৫ সেন্ট, এক্সট্রা লাইট ক্রডের দাম কমিয়ে ৩ ডলার ২০ থেকে ২ ডলার, মিডিয়াম লাইট ক্রুডের দাম ২ ডলার ৪৫ সেন্ট থেকে কমিয়ে ১ ডলার ৪৫ সেন্ট এবং হেভি ক্রুডের দাম ১ ডলার ৪০ সেন্ট থেকে কমিয়ে ব্যারেলপ্রতি ৪০ সেন্ট নির্ধারণ করা হয়েছে।

তবে এশিয়ার ভোক্তাদের জন্য কমিয়ে আনা হলেও যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলোতে অপরিশোধিত জ্বালানি তেল সরবরাহ মূল্য আগের মতোই রাখা হয়েছে।