নির্বাচনের আগে বোমা তৈরি : বিস্ফোরণে উড়ে গেল ঘরের টিন : কাউন্সিলর প্রার্থীর দেহরক্ষী আহত

যশোর : আগামী ২০ সেপ্টম্বর নওয়াপাড়া পৌরসভার নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে পৌর এলাকার আট নং ওয়ার্ড সাবেক কাউন্সিলর ও বর্তমান কাউন্সিলর প্রার্থী আসাদ বিশ্বাসের দেহরক্ষী শপ্পা (৩৫) বোমা তৈরি করছিল। নিজ ঘরে বোমা বানাতে গিয়ে বিস্ফোরণে শপ্পা জখম হয়েছেন। এ সময় বোমা বিস্ফোরণে ওই ঘরের টিনের চালা উড়ে যায় এবং দেয়ালে ফাটলের সৃষ্টি হয়। সোমবার রাত একটার দিকে পৌর শহরের রাজঘাট কার্পেটিং বাজার নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
আহত শপ্পা ওই এলাকার ইব্রহিম মোল্যার ছেলে। সে স্থানীয় সাবেক কাউন্সিলর ও বর্তমান কাউন্সিলর প্রার্থী আসাদ বিশ্বাসের দেহরক্ষী। তার হাতের তিনটি আঙুল, চোখ, মুখম-ল, বুক ও দুটি পায়ে মারাত্মকভাবে জখম হয়েছে। বোমা তৈরির সময় তার হাতেই বিস্ফোরিত হয় বলে পুলিশের ধারণা।
পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, শপ্পা নিজ ঘরের দরজা লাগিয়ে ভেতরে বোমা তৈরি করার সময় তা বিস্ফোরিত হয়। পুলিশ রাতেই ঘটনাস্থল থেকে বিস্ফোরিত বোমার আলামত, কাউন্সিলর প্রার্থী আসাদ বিশ্বাসের মোটর সাইকেল ও পাঁচটি ধারালো রামদা উদ্ধার করেছে।
পুলিশ জানায়, শপ্পা একজন বোমা তৈরির কারিগর। সে নিজ ঘরে বোমা বানানোর সময় বিকট শব্দে তা বিস্ফোরিত হয়। এ সময় পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রা আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তাকে পাঠানো হয়।
হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাদিয়া জাহান বলেন, বোমার স্প্রিন্টারে তার চোখ-মুখম-লসহ শরীরের সিংহভাগ অংশ মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। এ কারণে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।
অভিযোগের বিষয়ে কাউন্সিলর প্রার্থী আসাদ বিশ্বাস বলেন, আমি অসুস্থ্য। শপ্পা আমার মোটর সাইকেল চালায়। আমার মোটর সাইকেলটি তার বাড়িতে থাকে।
এ ব্যাপারে অভয়নগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) একেএম শামীম আহসান জানান, নিজ ঘরে বোমা তৈরিকালে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ওই ঘরের মধ্য থেকে পাঁচটি রামদা, একটি মোটর সাইকেল উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি গভীরভাবে তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। সন্ত্রাসী কর্মকা-ের সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।