যশোর শিক্ষা বোর্ডের আড়াই কোটি টাকা চেক জালিয়াতি কান্ডে তদন্তে নেমেছে দুদক

যশোর : যশোর শিক্ষা বোর্ডের আড়াই কোটি টাকা চেক জালিয়াতি কান্ডে তদন্ত শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন। রোববার সকাল ১১ টায় দুদক যশোর কার্যালয়ের উপ-পরিচালক নাজমুচ্ছায়াদাতের নেতৃত্বে তাদের একটি টিম শিক্ষা বোর্ড চেয়ারম্যানের কক্ষে প্রবেশ করেন। এর আগে সকাল সাড়ে ৯টায় দুদক অফিসে লিখিত অভিযোগ দেন শিক্ষা বোর্ড সচিব এএমএইচ আলী আর রাজ।
দুদক যশোরের উপ-পরিচালক জানান, শিক্ষা বোর্ড থেকে অভিযোগ পাওয়ার পর তারা সেটি ঢাকায় প্রধান কার্যালয়কে অবহিত করে তদন্তের নির্দেশ পেয়েছেন। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।
এদিকে চেক জালিয়াতির ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত শিক্ষা বোর্ডের হিসাব প্রদান শাখার হিসাব সহকারী আব্দুস সালাম পালিয়েছেন বলে জানিয়েছেন বোর্ডের চেয়ারম্যান মোল্লা আমীর হোসেন। তিনি জানান, কিছু না জানিয়ে আজ অফিসে অনুপস্থিত আব্দুস সালাম। বিভিন্ন মাধ্যমে জানতে পেরেছেন সে পরিবারসহ বাড়ি থেকে পালিয়েছে।
তিনি আরও জানান, যে দুইটি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে টাকা আত্মসাৎ করেছে তাদের মালিকেরা বিভিন্ন মাধ্যমে টাকা ফিরিয়ে দেবেন বলে খবর পাঠাচ্ছেন।
উল্লেখ্য, গেল ৭ অক্টোবর যশোর শিক্ষা বোর্ডের অডিট শাখা হিসাব নীরিক্ষা করতে গিয়ে ধরতে পারে ভ্যাটের জন্য দেয়া ৯টি চেকের মাধ্যমে জালিয়াতি করে ২ কোটি ৫২ লাখ ৪৪ হাজার ১০টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে। চেকগুলো ইস্যু করা হয় ভেনাস প্রিন্টার্স অ্যান্ড প্যাকেজিং ও শাহীলাল স্টোর নামে দু’টি প্রতিষ্ঠানের নামে।