কোবরা লেলিয়ে স্ত্রীকে হত্যা

ঢাকা : স্ত্রী হত্যার দায় এড়াতে ভিন্ন উপায় খুঁজে বের করেছিলেন এক স্বামী। প্রথমে তার স্ত্রীকে রাসেলস ভাইপারের কামড় খাইয়েছিলেন তিনি। ভাগ্যক্রমে সে সময় বেঁচে যান তার স্ত্রী। পরের দফায় স্ত্রীকে ফেলে দেন ভয়ংকর কোবরার মুখে। কোবরার কামড়ে মৃত্যু হয় স্ত্রীর। এই অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ওই ব্যক্তিকে দুই দফায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বিবিসি বুধবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ভারতের কেরালার সুরাজ কুমারের স্ত্রী উথরা গত বছর কোবরার কামড়ে মারা যান।

এ ঘটনায় উথরার পরিবার সুরাজের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ দায়ের করে। সুরাজ তাদের কাছে যৌতুকের দাবি করেছিলেন বলে উথরার পরিবার অভিযোগ করেছেন।

গত সোমবার সুরাজের বিরুদ্ধে ঘুমন্ত স্ত্রীর বিছানায় কোবরা ছেড়ে দেওয়ার প্রমাণ পায় আদালত।

গত বছরের মে মাসে উথরাকে বিষাক্ত রাসেলস ভাইপার কামড় দিয়েছিল। ওই সাপের কামড়ে কোনোমতে প্রাণে বেঁচে যান উথরা। ওই ঘটনার কয়েক সপ্তাহ পর ফের কোবরার ছোবলে উথরার মৃত্যু হয়। বিষয়টি তার পরিবারের সন্দেহ হয়। তারা পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন।

পুলিশ তদন্ত করে জানতে পারে, উথরার দুইবার সাপের কামড়ের পেছনে হাত রয়েছে সুরাজের।

অপরাধের ধরন বিবেচনা করে আদালত দুই দফায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয় সুরাজকে।