উটের পিঠ থেকে পড়ে আহত হয়েছিল: অনন্ত জলিল

???? ??? ???? ??? ??? ???????? ????? ????

ঢাকা : দেশীয় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে টেকনিক্যাল দিক থেকে শুরু করে অনেক কিছু দেখিয়েছেন। বিদেশের সিনেমার মতো অ্যাকশন তার সিনেমার মাধ্যমেই দর্শক প্রথমবার দেখার সুযোগ পেয়েছেন। তিনি অনন্ত জলিল। সাত বছরের বেশি সময় পর আগামী ২৪ ডিসেম্বর মুক্তি পাবে তার নতুন সিনেমা ‘দিন: দ্য ডে’। নায়ক দাবি করেছেন, এর বাজেট ১০০ কোটি টাকা। এটি আন্তর্জাতিক মানের সিনেমা। এসব কারণে সিনেমাটি নিয়ে দর্শকদের মাঝে কৌতুহল রয়েছে।

বাংলাদেশ ও ইরানের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত সিনেমাটিতে রেকর্ড পরিমাণ বাজেট ব্যয় হয়েছে। সিনেমাটির বাজেট বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১০০ কোটি টাকা যা মার্কিন ডলার হিসেবে ১২ মিলিয়ন। ইরানের সঙ্গে যৌথ প্রযোজনায় বানানো ‘দিন: দ্য ডে’র বাংলাদেশের অংশের প্রযোজক অনন্ত জলিল।

সম্প্রতি গণমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এই সিনেমার শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা জানিয়েছেন অনন্ত জলিল। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ ছাড়াও ইরান, তুরস্ক ও আফগানিস্তানে এর চিত্রায়ণ হয়েছে। মনে আছে, ইরানে আমরা যখন এর কাজ করছিলাম, তখন সেখানকার তাপমাত্রা ছিল ৪৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এত গরমের মধ্যেও সবাই নিজেদের সেরাটা দিয়েছেন। এ ছাড়া ইরানের হরাত নামক এক দুর্গম পাহাড় ও মরুভূমি এলাকায় শুটিং করার সময় উটের পিঠ থেকে পড়ে গিয়ে আহত হয়েছিলাম। দুর্ঘটনার পর স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় আমাকে। কিন্তু সেখানে পর্যাপ্ত চিকিৎসা ব্যবস্থা না থাকায় তেহরান থেকে ৩৪০ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থিত ইরানের তৃতীয় বৃহত্তম নগর এসফাহনে নিয়ে যাওয়া হয়।’

‘দিন: দ্য ডে’ ছবির মূল ভাষা বাংলা রেখে ফারসি, আরবি ও ইংরেজিতে ডাবিং করে একই সময়ে বাংলাদেশসহ ৮০টি দেশে মুক্তি দেওয়া হবে। এতে আন্তর্জাতিক সংস্থার পুলিশ অফিসারের চরিত্রে পর্দায় হাজির হবেন অনন্ত জলিল। নানা রকম ভুল মতবাদে আসক্ত সন্ত্রাসীগোষ্ঠীকে দমন অভিযানে অংশ নিবেন তিনি। এতে ইসলাম ধর্মের সঠিক ও সুন্দর বার্তা তুলে ধরা হয়েছে। অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে এই সিনেমাটিতে নিজেই নিজেকে ছাড়িয়ে গেছেন অনন্ত জলিল। তার দাবি, এ সিনেমাটি হলিউডের চেয়ে কোনো অংশে কম নয়।

তবে গেল মার্চে মুক্তি পাওয়া এই সিনেমার ট্রেলারের বেশির ভাগ জুড়েই বোমা-মিসাইল কিংবা ভারি অস্ত্রের ঝনঝনানি দেখা গেছে। এমন সংঘাতের দৃশ্য হরহামেশায় হলিউড কিংবা বলিউডের সিনেমায় দেখে থাকেন দর্শক। এই ছবির অ্যাকশন নিয়ে তাই বেশ কৌতূহলী ছিল বাংলা সিনেমাপ্রেমীরা। তবে বহু দর্শক ট্রেলার দেখে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন। বিশেষ করে ভিএফএক্স এর যথেচ্ছা ব্যবহার নিয়ে নেতিবাচক মন্তব্য দেখা গেছে অসংখ্য।