প্রেমিকের ছোঁড়া এসিডে ঝলসে প্রেমিকার মৃত্যু

যশোর: যশোরের অভয়নগর উপজেলায় বিয়ের জন্য চাপ সৃষ্টি করায় প্রেমিকাকে এসিড ছুড়ে ও পিটিয়ে হত্যা করেছে প্রেমিক। নিহত মিলশ্রমিক প্রেমিকা কেয়া (৩০) অভয়নগর উপজেলার কাদিরপাড়া গ্রামের মৃত- আবুল কালামের মেয়ে। প্রেমিক শামিম (৩৫) যশোরের অভয়নগর ও খুলনার ফুলতলা উপজেলার শেষ সীমানা নামক এলাকার বাসিন্দা বলে প্রথমিকভাবে জানা গেছে।
সোমবার দুপুরে নওয়াপাড়ার চামড়া মিল এস এ এফ এ কর্মরত অবস্থায় এ ঘটনা ঘটে। তারা উভয়ে ওই মিলের শ্রমিক বলে পুলিশ নিশ্চিত করেছে।
নিহত কেয়ার প্রতিবেশী ও পুলিশ সূত্রে জানাগেছে, কেয়া স্বামী পরিত্যাক্তা। তার ১২/১৩ বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। স্বামী পরিত্যাক্ত কেয়া ১০ বছরেরও অধিক সময় ধরে এসএএফ চামড়ার মিলে শ্রমিকের কাজ করে। একই মিলে শ্রমিকের কাজ করে শেষ সীমানা এলাকার শামিম। শেষ সীমানা এলাকায় কেয়ার বড় বোনের শ্বশুর বাড়ি। সেই সুবাদে ঘনিষ্টতা হয় শামীমেম সাথে। ঘনিষ্টতা এক সময় প্রেমের সম্পর্কে রূপ নেয়। সমপ্রতি কেয়া শামীমকে বিয়ের জন্য পিড়াপীড়ি করতে শুরু করে। কেয়ার প্রতিবেশীরা দাবি করেন, এ ঘটনাকে কেন্দ্র করেই শামীম কেয়াকে মিলে কর্মরত অবস্থায় সারা শরীরে এসিড ছুড়ে ঝলসে দেয়। কেয়া এসিডে ঝলসে ছটফট করতে থাকলে রড দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। মিলে কর্মরত অন্যান্যরা ছুটে এসে শামীমকে পুলিশে সোপর্দ করে এবং আহত কেয়াকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেলে কেয়া মারা যায়।
এ ব্যাপারে কেয়ার পরিবারের সদস্যদের সাথে কথা বলার চেষ্টা করে তাদের পাওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে অভয়নগর থানার অফিসার ইনচার্জ কেএম শামীম হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, অভিযুক্ত শামীমকে আটক করা হয়েছে। প্রাথমিক জ্ঞিাসাবাদ চলছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন। বিস্তারিত পরে জানানো হবে বলে তিনি জানান।